এসএসসি ২০২২ পৌরনীতি ও নাগরিকতা অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ৫ম সপ্তাহ

Aug 17, 2021 | All Assignment Answer

এসএসসি ২০২২ পৌরনীতি ও নাগরিকতা অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ৫ম সপ্তাহ – SSC 2022 Politics and citizenship Assignment Answer 5th Week: এসএসসি ২০২২ পরীক্ষার্থীদের ৫ম সপ্তাহের পৌরনীতি ও নাগরিকতা অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। প্রতিসপ্তাহের ন্যায় ৫ম সপ্তাহের মোট ০৫ টি বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্ট মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট dshe.gov.bd তে প্রকাশিত হয়। ৫ম সপ্তাহের ৫টি বিষয় হচ্ছে জীব বিজ্ঞান, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়, বিজ্ঞান, পৌরনীতি ও নাগরিকতা এবং ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং। ইতিমধ্যে আমরা ৫ম সপ্তাহের সকল অ্যাসাইনমেন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। তোমরা চাইলে সেখান থেকে ৫ম সপ্তাহের সকল এসাইনমেন্ট পিডিএফ আকারে ডাউনলোড করে নিতে পারবে। নিচে আমি লিংক দিয়ে রাখবো।

এসএসসি ২০২২ পৌরনীতি ও নাগরিকতা অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ৫ম সপ্তাহের জন্য

আপনি কি এসএসসি 2022 সালের একজন মানবিক বিভাগের পরীক্ষার্থী? তাহলে এই অ্যাসাইনমেন্টে সম্পূর্ণ আপনার জন্য প্রযোজ্য। কেননা এই পোস্টে আমরা এসএসসি ২০২২ পৌরনীতি ও নাগরিকতা অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর নিয়ে আলোচনা করবো। নিচে আমরা ধারাবাহিকভাবে ৫ম সপ্তাহের পৌরনীতি ও নাগরিকতা এসাইনমেন্ট উত্তর নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করবো।

এসএসসি ২০২২ পৌরনীতি ও নাগরিকতা অ্যাসাইনমেন্ট সম্পর্কিত সকল তথ্য

প্রশ্নের ধরনঅ্যাসাইনমেন্ট
শ্রেণিএসএসসি ২০২২
সপ্তাহ৫ম সপ্তাহ
বিষয় পৌরনীতি ও নাগরিকতা
প্রকাশের তারিখ১১ আগস্ট, ২০২১
প্রতিষ্ঠানমাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর
ওয়েবসাইটdshe.gov.bd
বিষয় কোড১৪০
অধ্যায়১ম
জমাদানের স্থাননিজ নিজ বিদ্যালয়
অ্যাসাইনমেন্ট উত্তরkaziitzone.com

এসএসসি 2022 পৌরনীতি ও নাগরিকতা পঞ্চম সপ্তাহ অ্যাসাইনমেন্ট কাজ

কোভিড-১৯ মহামারি কারনে স্বাভাবিক পরীক্ষা ব্যাহত হওয়ায় এর বিকল্প হিসেবে অ্যাসাইনমেন্ট চালু করে মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অফিসিয়াল ওযেবসাইট dshe.gov.bd এই ওয়েবসাইটে প্রতি সপ্তাহে অ্যাসাইনমেন্ট পিডিএফ আকারে প্রকাশ করে কতৃপক্ষ।

এই পোস্টের নিচে আমি ৫ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট পিডিএফ ফাইল আকারে দিয়ে রাখবো তোমরা চাইলে সেখান থেকে ৫ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট ডাউনলোড করে নিতে পারবে।

এসএসসি 2022 পৌরনীতি ও নাগরিকতা পঞ্চম সপ্তাহ অ্যাসাইনমেন্ট কাজ

এসাইনমেন্ট কাজ: আদর্শ পরিবার ও সমাজ গঠন এবং আধুনিক রাষ্ট্র ও সরকারের বিনির্মাণে তুমি কিভাবে পৌরনীতি ও নাগরিকতা জ্ঞান প্রয়োগ করবে।

শিখনফল/বিষয়বস্তু:

  • পৌরনীতি পাঠের বিষয়ে ধারণা ব্যাখ্যা করতে পারবে।
  • পৌরনীতি পাঠের প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা করতে পারবে।
  • পরিবার সমাজ রাষ্ট্র ও সরকারের ধারণা ব্যাখ্যা করতে পারবে।
  • পরিবার সমাজ রাষ্ট্র ও সরকারের সম্পর্ক বিশ্লেষণ করতে পারবে।

নির্দেশনা(সংকেত/ধাপ/ পরিধি): প্রথম অধ্যায়: (পৌরনীতি ও নাগরিকতা)

পৌরনীতি ও নাগরিকতা

  • পরিবার
  • সমাজ
  • রাষ্ট্র
  • সরকার

এসএসসি ২০২২ পৌরনীতি ও নাগরিকতা অ্যাসাইনমেন্ট উত্তরঃ

আদর্শ পরিবার ও সমাজ গঠন এবং আধুনিক রাষ্ট্র ও সরকারের বিনির্মাণে তুমি কিভাবে পৌরনীতি ও নাগরিকতা জ্ঞান প্রয়োগ করবে।

পৌরনীতির ইংরেজি শব্দ সিভিক্স (Civics)। সিভিক্স শব্দটি দুটি ল্যাটিন শব্দ সিভিস (Civis) এবং সিভিটাস (Civitas) থেকে এসেছে। সিভিস (Civis) শব্দের অর্থ নাগরিক (Citizen) আর সিভিটাস শব্দের অর্থ নগর-রাষ্ট্র (City State)।

পৌরনীতি ও নাগরিকতা:

প্রাচীন গ্রিসে নাগরিক ও নগররাষ্ট্র ছিল অবিচ্ছেদ্য। ওই সময় গ্রিসে ছোট ছোট অঞ্চল নিয়ে গড়ে ওঠে নগর-রাষ্ট্র। যারা নগর রাষ্ট্রীয় কাজে সরাসরি অংশগ্রহণ করতো, তাদের নাগরিক বলা হতো। শুধু পুরুষশ্রেণি রাষ্ট্রীয় কাজে অংশগ্রহণের সুযোগ পেত বিধায় তাদের নাগরিক বলা হতো।

বর্তমানে নাগরিকের ধারণার পরিবর্তন ঘটেছে। পাশাপাশি নগর-রাষ্ট্রের স্থলে বৃহৎ আকারের জাতিরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। যেমন- বাংলাদেশের ক্ষেত্রফল ১,৪৭,৫৭০ বর্গ কিলোমিটার এবং লোকসংখ্যা প্রায় ১৯ কোটি। আমরা সবাই বাংলাদেশের নাগরিক। নাগরিক অধিকার ভোগের পাশাপাশি আমরা রাষ্ট্রের প্রতি দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করে থাকি।

তবে আমাদের মধ্যে যারা অপ্রাপ্তবয়স্ক অর্থাৎ যাদের বয়স ১৮ বছরের নিচে, তারা ভোটদান কিংবা নির্বাচিত হওয়ার মতো রাজনৈতিক অধিকার ভোগ করতে পারে না। তাছাড়া বিদেশিদের কোনো রাজনৈতিক অধিকার ভোগ করার সুযোগ নেই। যেমন- নির্বাচনে ভোট দ্বারা নির্বাচিত হওয়ার সুযোগ নেই। মূলত রাষ্ট্র প্রদত্ত নাগরিকের মর্যাদা কে নাগরিকতা বলে।

পরিবার:

সমাজ স্বীকৃত বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়ে স্বামী-স্ত্রীর একত্রে বসবাস করাকে পরিবার বলে। অর্থাৎ বৈবাহিক সম্পর্কের ভিত্তিতে এক বা একাধিক পুরুষ ও মহিলা তাদের সন্তানাদি, পিতামাতা এবং অন্যান্য পরিজন নিয়ে যে সংগঠন গড়ে ওঠে- তাকে পরিবার বলে।

ম্যাকাইভারের মতে, সন্তান জন্মদান ও লালন পালনের জন্য সংগঠিত ক্ষুদ্র বর্গকে পরিবার বলে।

আমাদের দেশে সাধারণত মা-বাবা, ভাই-বোন, চাচা চাচি ও দাদা-দাদির সমন্বয়ে পরিবার গড়ে ওঠে। তবে শুধু একজন মহিলা বা একজন পুরুষকে পরিবার বলা হয় না। মূলত পরিবার হলো স্নেহ, মায়া, মমতা, ভালোবাসার বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে গঠিত ক্ষুদ্র সামাজিক প্রতিষ্ঠান।

আমরা সবাই পরিবারে বাস করি। কিন্তু সব পরিবারের প্রকৃতি ও গঠন কাঠামো একরকম নয়। কতগুলো নীতির ভিত্তিতে পরিবারের শ্রেণীবিভাগ করা যায়।

নাগরিকতা পরিবার সমাজ রাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সংস্থার ব্যাখ্যা

সমাজ:

সমাজ বলতে সেই সংঘবদ্ধ জনগোষ্ঠীকে বোঝায়, যারা কোনো সাধারণ উদ্দেশ্য সাধনের জন্য একত্রিত হয়। অর্থাৎ একদল লোক যখন সাধারণ উদ্দেশ্য সাধনের জন্য সঙ্গবদ্ধ হয়ে বসবাস করে, তখনই সমাজ গঠিত হয়।

সমাজের এ ধারণাটি বিশ্লেষণ করলে এর প্রধান দু’টি বৈশিষ্ট্য লক্ষ করা যায়। যথা-

  • ক) বহুলোকের সংঘবদ্ধভাবে বসবাস এবং
  • খ) ঐ সংঘবদ্ধতার পেছনে থাকে সাধারণ উদ্দেশ্য।

সমাজের সাথে মানুষের সম্পর্ক অবিচ্ছেদ্য। মানুষকে নিয়ে সমাজ গড়ে উঠে। আর সমাজ মানুষের বহুমুখী প্রয়োজন মিটিয়ে উন্নত ও নিরাপদ সামাজিক জীবন দান করে।

সমাজের মধ্যেই মানুষের মানবীয় গুণাবলি ও সামাজিক মূল্যবোধের বিকাশ ঘটে। সমাজকে সভ্য জীবনযাপনের আদর্শ স্থান মনে করে বলে মানুষ তার নিজের প্রয়োজনেই সমাজ গড়ে তোলে।

গ্রিক দার্শনিক অ্যারিস্টটল যথার্থই বলেছেন, মানুষ স্বভাবগত সামাজিক জীব। যে সমাজে বাস করে না, সে হয় পশু, না হয় দেবতা।

বস্তুত মানুষ জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত সমাজে বসবাস করে এবং সামাজিক পরিবেশেই সে নিজেকে বিকশিত করে।

রাষ্ট্র:

রাষ্ট্র একটি রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান। বিশ্বের মানুষ কোনো না কোনো রাষ্ট্রে বসবাস করে। আমাদের এই পৃথিবীতে ছোট বড় মিলিয়ে প্রায় ২০০ টি রাষ্ট্র আছে। প্রতিটি রাষ্ট্রেরই আছে নির্দিষ্ট ভূখণ্ড এবং জনসংখ্যা। এ ছাড়া রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য আরও আছে সরকার এবং সার্বভৌমত্ব। মূলত এগুলো ছাড়া কোনো রাষ্ট্র গঠিত হতে পারে না।

অধ্যাপক গার্নার বলেন, ‘সুনির্দিষ্ট ভূখণ্ডে স্থায়ীভাবে বসবাসকারী, সুসংগঠিত সরকারের প্রতি স্বভাবজাতভাবে আনুগত্যশীল, বহিঃশত্রুর নিয়ন্ত্রণ হতে মুক্ত স্বাধীন জনসমষ্টিকে রাষ্ট্র বলে।’

রাষ্ট্র কখন ও কীভাবে উৎপত্তি লাভ করেছে তা নিশ্চিত করে বলা কঠিন। তবে রাষ্ট্রবিজ্ঞানীরা অতীত ইতিহাস ও রাজনৈতিক ঘটনাপ্রবাহ পরীক্ষা-নীরিক্ষা করে রাষ্ট্রের উৎপত্তি সম্পর্কে কতগুলো মতবাদ প্রদান করেছেন।

সরকার:

পৌরনীতি ও সুশাসনের সাথে লোক প্রশাসনের সম্পর্ক পরনীতি ও সুশাসন এবং লোক প্রশাসন সমাজবিজ্ঞানের অন্তর্ভূক্ত দুটি পৃথক শাখা। পৌরনীতি ও সুশাসন নাগরিক ও রাষ্ট্রের রাজনৈতিক দিক নিয়ে আলোচনা করে থাকে। অন্যদিকে লোক প্রশাসন সরকারের কার্যাবলি ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের জন্য জনশক্তি এবং সম্পদের সুষ্ঠু সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা করে থাকে। সেজন্য উভয় শাস্ত্রের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে।

0 Comments

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Adsense

Categories

জনপ্রিয় পোস্ট সমূহ

Pin It on Pinterest

Share This